1. dailygonochetona@gmail.com : admi2017 :
  2. aminooranzan@gmail.com : Amin Anzan : Amin Anzan
  3. aminooranzan24@gmail.com : Amin Anzan : Amin Anzan
  4. chanmiahsw@gmail.com : chan miah : chan miah
  5. sbnews74@gmail.com : sajahan biswas : sajahan biswas
বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৮:২১ অপরাহ্ন

আরিচা-কাজিরহাট নৌরুটে ফেরি সংকট পারাপারর অপেক্ষায় শত শত পণ্যবাহী ট্রাক

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৪ অক্টোবর, ২০২১, ৫.৪৪ পিএম
  • ৯০ বার পঠিত

শাহজাহান বিশ্বাস: ৪ অক্টোবর ২০২১
আরিচা-কাজিরহাট নৌরুটে মাত্র একটি মাত্র ফেরি দিয়ে চালু রাখা হয়েছে ফেরি সার্ভিস। ফলে এ নৌরুটে ফেরি সংকট চরম আকার ধারন করছে। এতে দুই পারেই পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে শত শত পণ্যবাহী ট্রাক। আটকে পড়া এসব ট্রাকের চালক এবং হেলপারদেরকে অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। রবিবার গভীর রাতে আসা ট্রাকগুলো সোমবার দুপুরেও ফেরি পারাপার হতে পারেনি। কখন ফেরি পার হবেন তাও বলতে পারছেন না আটকে পড়া এসব যানবাহন শ্রমিকরা।
এদিকে আরিচা ঘাটে দালালের উৎপাত বৃদ্ধি পেয়েছে। ঘাটে চিহ্নিত একটি দালাল চক্র দীর্ঘ দিন ধরে অতিরিক্ত টাকার বিনিময়ে সিরিয়াল ভঙ্গ করে ফেরিতে ট্রাক বুকিং দিয়ে আসছে। এ নিয়ে মাঝে মধ্যে ট্রাক চালক ও দালালদের মধ্যে মারপিটের ঘটনাও ঘটছে। এ থেকে পরিত্রাণ পেতে প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করছেন ট্রাক শ্রমিকরা।

বিআইডব্লিউটিসি সুত্রে জানা গেছে, সোমবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত আরিচা-কাজিরহাট নৌরুটে চলাচলরত তিনটি ফেরি মধ্যে মাত্র একটি ফেরি দিয়ে যানবাহন পারাপার করা হয়েছে। দীর্ঘ দিন বন্ধ থাকার পর সোমবার ( ০৪ অক্টোবর) মাওয়ায় ফেরি সার্ভিস চালু হওয়াতে ফেরি বেগম রোকেয়া, বেগম সুফিয়া কামাল ও কলমিলতা শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি নৌবহরে নিয়ে যান ফেরি কর্তৃপক্ষ। এদিকে পাটুরিয়া থেকে আরিচা-কাজিরহাট নৌবহরে যুক্ত হয় ফেরি শাহ জালাল ও শাহ মুখদুম। এর মধ্যে ফেরি শাহ মুখদুম যান্ত্রীক ত্রুটির কারণে সোমবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত আরিচা ঘাটে নোঙর করে রাখা হয়। এছাড়া ফেরি কপোতি ইঞ্জিন সমস্যার কারণে দীর্ঘ ১৫দিন ধরে আরিচা ঘাটে বিকল হয়ে মেরামতের অপেক্ষায় রয়েছে।
ফলে এ নৌরুটে ফেরি স্বল্পতা দেখা দিয়েছে। এতে ফেরির ট্রিপ সংখ্যা কমে গেছে এবং ঘাটে এসে গাড়িগুলোকে পারের জন্য অপেক্ষার প্রহর গুণতে হচ্ছে। ফলে দিন দিন গাড়ির সংখ্যা বেড়েই চলছে। এতে একদিকে গাড়ি চালক এবং মালিকদের হয়রানি ও ভোগান্তি বাড়ছে অপরদিকে পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছেন ফেরি কর্তৃপক্ষ।

সকালে আরিচা ঘাট ঘুরে দেখা গেছে, ফেরি পার হতে আসা গাড়িগুলো আরিচা টার্মিনালে এবং সড়কের উপর রাখা হয়েছে। নদী পার হওয়ার জন্য ফেরির অপেক্ষায় রয়েছে এসব যানবাহন। ফেরিতে নদী পার হওয়ার জন্য আরিচা ৩নং ফেরি ঘাটে অনেক যাত্রীকেও ফেরি জন্য অপেক্ষা করতে দেখা গেছে। আরিচা-কাজিরহাট নৌরুটে বর্তমানে মাত্র তিনটি ফেরি রয়েছে এর মধ্যে দুইটি বিকল।
এ নৌরুটে দিন দিন গাড়ির সংখ্যা বাড়লেও ফেরির সংখ্যা বাড়ানো হয়নি। চাহিদার তুলনায় ফেরি কম। স্বল্প সংখ্যক এ ফেরি দিয়ে এ নৌরুটে ফেরি সার্ভিস ঠিক রাখতে হিমশিম খাচ্ছেন কর্তৃপক্ষ। তিনটি ফেরির দু/একটি মাঝে মধ্যে বিকল হয়ে মেরামতে গেলে আরিচা ঘাটে যানজট পরিস্থিতির আরো নাজুক অবস্থার সৃষ্টি হয়।
এরমধ্যে রয়েছে আবার বুকিং কাউন্টারে দালালের উৎপাত। এদের অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে উঠেছে গাড়ি চালক ও বিআইডব্লিউটিসি’র কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা। গত রবিবার দুপুরে স্থানীয় চিহ্নিত এক দালাল গাড়ির সিরিয়াল ভঙ্গ করে ফেরিতে গাড়ি উঠাতে গিয়ে গ্লাস ভেঙ্গে যায়। এসময় সিরিয়ালে থাকা ওই গাড়ি চালকের সাথে প্রথমে কথা কাটাকাটি পরে হাতাহাতি হয়। এক পর্যায়ে স্থানীয় ওই দালাল দলবল নিয়ে এসে ওই গাড়ির চালককে এলোপাতাড়িভাবে মারপিট করে জখম করে। এ অবস্থা নিয়েই তিনি চলে যান।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে জৈনক এক ফেরির মাস্টার জানান, ১৪ কিলোমিটার দুরুত্বে আরিচা-কাজিরহাট এ নৌরুটে একটি ফেরি ফেরি যাতায়াতে অনেক সময় ব্যায় হয়। আরিচা ঘাট থেকে একবার একটি ফেরি ছেড়ে গেলে তা ফিরে আসতে ৫ ঘন্টা লাগে। দীর্ঘ এ সময় ফাঁকা থাকে ঘাট। কোন গাড়ি এ সময়ে ঘাটে আসলে ফেরির জন্য অপেক্ষায় থাকতে হয়। আর যদি ফেরি বাড়ানো হতো তাহলে এভাবে ফেরির জন্য অপেক্ষা করতে হতো না।
ট্রাক চালক মো. শামসুর রহমান বলেন,আরিচা-কাজিরহাট নৌরুটে ফেরি সার্ভিস চালু হবার পর থেকেই আমরা এ রুটে যাতায়াত করি। দীর্ঘ পথ জার্নি করার পর ফেরিতে কিছু সময়ের জন্য বিশ্রাম নেওয়া যায় বলে আমরা এ পথে আসি। কিন্তুু ফেরি স্বল্পতার কারণে ঘাটে এসে ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষো করতে হয় বলে ভাল লাগেনা। এ নৌরুটে দিন দিন গাড়ির সংখ্যা বাড়ছে। কিন্তুু ফেরি বড়ছে না। তাই কর্তৃপক্ষের নিকট ফেরি সংখ্যা বাড়ানো জন্য বিনীত অনুরোধ করেন তিনি।
ট্রাক চালক হাফিজ উদ্দিন জানান, তিনি রবিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় আরিচা ঘাটে আসেন। কিন্তু সোমবার বেলা ২টাতেও ফেরি পার হতে পারেননি। দীর্ঘ সময় অপেক্ষার পর ফেরি পার হতে না পেরে অবশেষে বঙ্গবন্ধু সেতু হয়ে যাওয়ার প্রস্তুুতি নিচ্ছেন। ফেরি না বাড়ালে তিনি আর এ পথে আসবেন না বলে জানান।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয়রা বলেন, আরিচা-কাজিরহাট ফেরি সার্ভিস চালু হওয়ার পর অল্প দিনেই বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। কিন্তুু কর্তৃপক্ষের গাফলতির কারণে অল্প দিনে জনপ্রিয় ও লাভজনক হয়ে উঠা এ নৌরুটটি বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশংকা করছেন তারা। সোমবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত মাত্র একটি ফেরি দিয়ে গাড়ি পারাপার করা হয়েছে। এতে অনেক গাড়ি বিকল্প পথে গন্তব্যে যাওয়ার জন্য ঘাট থেকে ফিরে গেছে। এভাবে দিনে দিনে পণ্যবাহী ট্রাকসহ অন্যান্য যানবাহন আসা বন্ধ হয়ে গেলে অতি সহজেই বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশংকা করছেন কোটি কোটি টাকা ব্যায় করে চালু হওয়া আরিচা-কাজিরহাট নৌরুটের ফেরি সার্ভিস। এ বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছেন স্থানীয়রা।

আরিচা ঘাটের ম্যানেজার আবু আব্দূলাহ বলেন, আরিচা-কাজিরহাট নৌরুটি দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। কিন্তুু স্বল্পসংখ্যক ফেরি দিয়ে ফেরি সার্ভিস ঠিক রাখা কঠিণ হয়ে পড়েছে। সোমবার সকাল থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত একটি ফেরি দিয়ে মাত্র দু’টি ট্রিপ দেওয়া হয়েছে। এতে বেশীর ভাগই ছোট গাড়ি পার করা হয়েছে। ফলে ট্রাক চালকরা ঘন্টার পর ঘন্টা পারাপারের অপেক্ষায় বসে থেকে ধর্যহারা হয়ে পড়েছে এবং অনেকেই বিকল্প রাস্তা দিয়ে চলাচলের চিন্তাভাবনা করছে। আরিচা-কাজিরহাট নৌরুটে ফেরি সার্ভিস ঠিক রাখতে হলে আরো ফেরি বাড়াতে হবে। এর কোন বিকল্প নেই।
শাহজাহান বিশ্বাস/গণচেতনা।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazargonoche21

© All rights reserved  2020 Gonochetona.com