1. dailygonochetona@gmail.com : admi2017 :
  2. aminooranzan@gmail.com : Amin Anzan : Amin Anzan
  3. aminooranzan24@gmail.com : Amin Anzan : Amin Anzan
  4. chanmiahsw@gmail.com : chan miah : chan miah
  5. sbnews74@gmail.com : sajahan biswas : sajahan biswas
মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০১:৪২ পূর্বাহ্ন

পাটুরিয়া ও আরিচায় ফেরিসহ সকল ধরণের নৌযান চলাচল বন্ধ যাত্রী দুর্ভোগ চরমে

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৮ মে, ২০২১, ১০.৫৭ পিএম
  • ৭২ বার পঠিত

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধিঃ ০৮ মে

হঠাৎ করে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া এবং আরিচা-কাজিরহাট নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ হওয়ায় বিপাকে পড়ে ঘাটে আসা যাত্রী ও যানবাহন শ্রমিকরা। নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে শনিবার সকাল ৬টা থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখে কর্তৃপক্ষ। এতে ঘাটে আসা যাত্রীদেরকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। ফেরিগুলো উভয় ঘাটে নৌঙর করে রাখা হয়। আরিচা এবং পাটুরিয়া ঘাট এলাকায় পুলিশের টহল ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। ফলে স্পিডবোট ও ইঞ্জিন চালিত স্যালো নৌকাসহ সকল ধরনের নৌযান চলাচল সম্পুর্ণরূপে বন্ধ রয়েছে। ফলে শনিবার সকালে একেবারেই বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা।
জানা গেছে, ঈদের পূর্বে ভীড় হওয়ার আশংকায় ঈদ করার জন্য অনেকে আগেভাগেই গ্রামের বাড়িতে যাচ্ছেন।এতে শুক্রবার ফেরিঘাটগুলোতে এবং ফেরিতে যাত্রীদের অতিরিক্ত চাপ দেখা যায়। যাত্রীরা ফেরিতে গাদাগাদি করে বসে যাতায়াত করছে। এতে করোনা সংক্রমানের ঝুকি বাড়ার আশংকায় ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে বলে অনেকেই মনে করছেন।

শনিবার সকালে পাটুরিয়া ও আরিচা ঘাট ঘুরে দেখা গেছে, ফেরিগুলো ঘাটে নোঙর করে রাখা হয়েছে। ঘাটে আসা যাত্রীরা পারাপারের জন্য ফেরি পন্টুনে ভীড় করছে। যানবাহনগুলো পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে। এ্যম্বুল্যান্স পার করার জন্য একটি ফেরি পন্টুনে ভীড়তে চাইলে যাত্রীরা মরিয়া হয়ে উঠে ফেরিতে উঠার জন্য। এপরিস্থিতে ফেরিটি এ্যাম্বুল্যান্স না নিয়ে পন্টুন ছেড়ে নদীর মাঝে চলে যায়। শনিবার সকাল থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ফেরি চলাচল একেবারেই বন্ধ থাকায় ঘাটগুলোর উভয় প্রান্তে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের গাড়িগুলো এবং যাত্রীরা পারাপারের জন্য অপেক্ষার প্রহর গুণতে থাকে। এতে চরম বিপাকে পড়ে ঘাটে আসা এসব যাত্রীরা । যাত্রীদের চাপের কারণে শনিবার দুপুরের পর আন- অফিসিয়ালভাবে দু’একটি ফেরি চলতে দেখা গেছে। এসব ফেরিতে গাদাগাদি করে বসে যাত্রীরা নদী পার হচ্ছে।
পাবনাগামী যাত্রী রবিউল বলেন, ফেরি বন্ধ রয়েছে আগে জানলে ঘাটে আসতাম না। ফেরি বন্ধের নির্দেশনা আগে থেকে দিলে যাত্রীদের এ ভোগান্তি হতো না বলে তিনি মনে করেন।
আবুল হাসেম নামের এক যাত্রী বলেন, তিনি ইশ্বরদী যাবেন। ঢাকা থেকে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে কয়েক দফায় গাড়ি পাল্টিয়ে সকাল ১০টায় আরিচা পৌঁছান। এসে দেখেন ফেরিসহ সকল ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ। এখন তিনি না পারছেন ফেরত যেতে, না পারছেন নদী পার হতে। মহাবিপাকে পড়েছেন তিনি। ফেরি সার্ভিস বন্ধ রাখার ঘোষনাটি বৃহস্পতিবার বা শুক্রবার সকালে দিলে ভাল হতো বলে তিনি মনে করেন।
বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিববহণ করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা অঞ্চলের ডিজিএম মো. জিল্লুর রহমান বলেন, শুক্রবার মধ্যরাতে নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় শনিবার সকাল থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। বিশেষ বিবেচনায় ছোট একটি ফেরি দিয়ে শুধু রোগী ও লাশবাহী এ্যাম্বুল্যান্স পারাপার করা হচ্ছে। গত শুক্রবার দিবাগত রাতে যতদুর সম্ভব গাড়ি পারাপার করা হয়েছে।
এরপরও পাটুরিয়াতে কয়েকশ গাড়ি পারা-পারের অপেক্ষায় রয়েছে। প্রাইভেটকার মাইক্রোবাসসহ ছোট গাড়ির ভীড়ও বাড়ছে।

শাহজাহান বিশ্বাস, মানিকগঞ্জ।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazargonoche21

© All rights reserved  2020 Gonochetona.com